দেশ বিক্রি করে ক্ষমতার লোভ ছিল না, থাকবেও না: শেখ হাসিনা

মাদারীপুর: ২০০১ সালে গ্যাস বিক্রির বিনিময়ে ক্ষমতার প্রস্তাব নাকচ করে দিয়েছিলেন জানিয়ে আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনা বলেছেন, দেশের স্বার্থ বিক্রি করে আমার কখনো ক্ষমতায় যাওয়ার লোভ ছিল না।

শনিবার (ডিসেম্বর ৩০) বিকেলে কালকিনি সৈয়দ আবুল হোসেন বিশ্ববিদ্যালয় কলেজ মাঠে নির্বাচনী জনসভায় তিনি এ কথা বলেন।২০০১ সালের কথা তুলে ধরে শেখ হাসিনা বলেন, আমি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের কন্যা, দেশের স্বার্থ বিক্রি করে ক্ষমতায় যাওয়ার লোভ আমার কখনো ছিল না, থাকবেও না। আমি সেটা (২০০১ সালে গ্যাস বিক্রির বিনিময়ে ক্ষমতার প্রস্তাব) নাকচ করে দেই।

কিন্তু খালেদা জিয়া মুচলেকা দেয় ক্ষমতায় গেলে গ্যাস বিক্রি করবে।

আন্তর্জাতিকভাবে নির্বাচনের বিরুদ্ধে চক্রান্ত চলছে মন্তব্য করে তিনি বলেন, ভোটের দিন একেবারে সকালে গিয়ে আপনারা সবাই ভোট দেবেন।

আজকে আন্তর্জাতিকভাবে এক চক্রান্ত হচ্ছে বাংলাদেশকে নিয়ে, এই বাংলাদেশকে নিয়ে ছিনিমিনি খেলতে চায় সেটা আমরা হতে দেব না।

সবাইকে নৌকা মার্কায় ভোট দেওয়ার আহ্বান জানিয়ে শেখ হাসিনা বলেন, নৌকা মার্কায় ভোট দিয়ে আমাদের সহযোগিতা করুন যাতে আমরা বাংলাদেশের মানুষের সেবা করতে পারি।

নৌকা মার্কায় ভোট চাই কারণ, নৌকা দেবে উন্নয়ন। নৌকা ছাড়া আমাদের কোনো উপায় নেই।

বিএনপি-জামায়াতের সমালোচনা করে আওয়ামী লীগ প্রধান বলেন, ৭ জানুয়ারি নির্বাচন যারা ঠেকাতে চায়, ওই বিএনপি-জামায়াত সন্ত্রাসী। ওরা সন্ত্রাসী রাজনৈতিক দল। বোমাবাজি সন্ত্রাস, এভাবে যেন নির্বাচন বানচাল করতে না পারে। ওই সন্ত্রাসী দল বিএনপি আর যুদ্ধাপরাধী জামায়াত এদের রাজনীতি করার কি অধিকার আছে? তারা তো মানুষ খুনির দল। জিয়াউর রহমান খুনি, খালেদা জিয়া, এখন তারেক জিয়া খুনি। ওই খুনিদের রাজত্ব আর এদেশে হবে না। খুনের জন্য ওদের বিচার হবে। এতগুলো মানুষ যে তারা মেরেছে তার বিচার একদিন বাংলাদেশ হবে।

বক্তব্য শেষে শেখ হাসিনা মাদারীপুরের নৌকার প্রার্থীদের পরিচয় করিয়ে দেন এবং তাদের জন্য ভোট চান। জনসভা মঞ্চে অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন প্রধানমন্ত্রীর ছোট বোন শেখ রেহানা।

কালকিনি উপজেলা আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতি আবুল কালাম আজাদের সভাপতিত্বে জনসভায় বক্তব্য দেন আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আফম বাহাউদ্দিন নাছিম, কালকিনি থেকে নৌকার প্রার্থী এবং আওয়ামী লীগের প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক আব্দুস সোবহান মিয়া (গোলাপ)।

এর আগে আওয়ামী লীগ প্রধান শেখ হাসিনা নিজের নির্বাচনী এলাকা গোপালগঞ্জের টুঙ্গিপাড়া এবং কোটালিপাড়ায় নির্বাচনী জনসভায় অংশগ্রহণ করেন। কালকিনির জনসভা শেষে সড়ক পথে ঢাকায় ফেরেন সরকার প্রধান।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *